মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

মন্দির

লগ্নসার আনন্দ বৌদ্ধ বিহার

 

লালমাই পাহাড়ের পাদদেশে ৯ নং দক্ষিনশিলমুড়ী ইউনিয়নেরনং লগ্নসার ওয়ার্ডে চাঁদপুর -চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কের উত্তর পাশ্বে ২৫ শতক ভূমির উপর বিহারটি অবস্থিত। ১৯৮১ ইং সনে স্থানীয় বৌদ্ধরা সুগতানন্দ মহাথের  ও অধ্যাপক ড. সনীথানন্দ থের মহোদয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় ইতিহাসের সাক্ষ্যপাল ও চন্দ্র বংশীয় রাজাদের দ্ধারা প্রতিষ্টিত লালমাই পাহাড়ে হারিয়ে যাওয়া সেই আনন্দ বিহারের নাম করণে বিহারটি প্রতিষ্ঠিত করেন।১৯৯৯ সালে বিহারের রাসত্মার পাশ্বে বহুপ্রাচীন (বিভিন্ন প্রত্নতত্ত্ববিদ্দের মতে পাল ও চন্দ্র বংশীয় রাজাদের দ্ধারা নির্মিত) প্রায় ৫ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট একটি কালো পাথরের বুদ্ধমূর্তি পাওয়া যায় যা বর্তমানে বিহারে রক্ষত আছে। এছাড়া ও থাইল্যান্ড সরকার ও সেখানকার দায়ক-দায়িকারা বিহারে সাড়ে ছয়ফুট উচ্চতা বিশিষ্টএকটি রয়েল বুদ্ধমূর্তি এবং ভিক্ষাপ্রাত্র সহ দ-য়মান একটি বুদ্ধমূর্তি সহ ২টি বুদ্ধমূর্তি দান করেন যা বিহারের সৌর্ন্দয্য বহুগুণ বৃদ্ধি করেছে। হাজার বছরের প্রাচীন কালো পাথরের বুদ্ধ মূর্তিটি সহ বিহারের পরিপাঠি বুদ্ধরম্নম দর্শনার্থীদের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষন করে। এছাড়া ও রয়েছে সুন্দর বোধি চৈত্য, সহ আরো কিছু স্থাপত্য, যার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে প্রতি দিন অনেক দর্শনার্থী বিহারটি পরিদর্শনে আসেন। বিহারটি ধর্মীয় কাজের পাশাপাশি বিভিন্ন সমাজকল্যাণ মূলক বিভিন্ন কাজে অংশ গ্রহণ করে থাকেন এরই নিরিখে এখানে গড়ে উঠেছে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক নিবন্ধীকৃত সেচ্চাসেবী সংগঠন ড. সুনীথানন্দ মেমোরিয়াল সোসাইটি যার নিবদ্ধন নং- কুমি-১৯৮০/২০১১, এবং সুগতানন্দ সার্বজনীন পাঠাগার নামে একটি সম্বৃদ্ধ পাঠাগার।